বান্দরবানে পাঠ্যপুস্তুক উৎসব নিয়ে শঙ্কা : মাদ্রাসার বই পৌঁছানি, অবরোধে বাধাগ্রস্ত সরবরাহ

Bandarban book pic-23.12.2013

স্টাফ রিপোর্টার :

১৮ দলীয় জোটের টানা অবরোধ-হরতালের কারণে পহেলা জানুয়ারিতে উদযাপিত হতে যাওয়া পাঠ্যপুস্তক উৎসব বাধাগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। মূলত পরিবহণ জটিলতায় মাধ্যমিক ও মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের জন্য ২০১৪ শিক্ষাবর্ষের বিনামূল্যের পাঠ্যবই সরবরাহ বিঘ্নিত হচ্ছে। এর ফলে গত চার বছর ধরে পহেলা জানুয়ারি উদযাপিত পাঠ্যপুস্তক উৎসব নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। বান্দরবারেন সরকারী-বেসরকারী মাধ্যমিক স্কুলে ৭৫% বই সরবরাহ করা হয়েছে দাবী করেন জেলা শিক্ষা অফিস কর্মকর্তা।

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর গত চার বছর ধরে চলছে সারা দেশের সব স্কুলে পহেলা জানুয়ারি পাঠ্যপুস্তক উৎসব দিবস পালন। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী বছরের পহেলা জানুয়ারিও পাঠ্যপুস্তক উৎসব করা হবে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা।

বান্দরবান জেলার সরকারী ৭টি, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ ৩টি ও বেসরকারী মিলিয়ে সর্বমোট ৫৫টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এই সকল বিদ্যালয়ে চাহিদা অনুযায়ী ২ লক্ষ ৪হাজার ৩১টি বইয়ের বিপরিতে ২ লক্ষ ১৪ হাজার ৮৮৭টি পাঠ্যবই বই বিভিন্ন স্কুল পর্যায়ে পাঠানো হয়েছে। সে হিসেবে ৭৯ হাজার ১৪৪ টি বিনা মূল্যে পাঠ্য বই বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছা অনিশ্চিৎ হয়ে পরেছে। সবচেয়ে বেশী বেকায়দায় রয়েছে মাদ্রাসার শির্ক্ষর্থীরা। মাদ্রাসা স্থরের কোন বই না পৌঁছানোর কথা জানিয়েছেন জেলা শিক্ষা অফিস কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন।

শিক্ষা অফিস সূত্রে জানান যায়, সদর উপজেলায় চাহিদার অনুযায়ী ৯৪ হাজার ৫২৭টি বইয়ের বিপরীতে ৭৩ হাজার ৭৪৭টি বই স্কুল পর্যায়ে পাঠানো হলেও ২০ হাজার ৭৮০টি বই ঘাটতি রয়েছে।  লামা উপজেলায় চাহিদার অনুযায়ী ৮৬ হাজার ৭৬০ টি বইয়ের বিপরীতে ৬৩ হাজার ৬৭৭টি বই স্কুল পর্যায়ে পাঠানো হলেও ২৩ হাজার ৮৮টি বই ঘাটতি রয়েছে।

আলীকদম উপজেলায় চাহিদার অনুযায়ী ২৯ হাজার ৩৫০টি বইয়ের বিপরীতে ২১ হাজার ৬৮৮টি বই স্কুল পর্যায়ে পাঠানো হলেও ৭ হাজার ৬৮৮টি বই ঘাটতি রয়েছে। নাইক্ষংছড়ি উপজেলায় চাহিদা ৪২ হাজার ৯৩৫টি বইয়ের বিপরীতে ২৯ হাজার ৩৪৫টি বই স্কুল পর্যায়ে পাঠানো হলেও ১৩ হাজার ৯৫০ টি বই ঘাটতি রয়েছে। রুমা উপজেলায় চাহিদার অনুযায়ী ১৮হাজার ২২৫টি বইয়ের বিপরীতে ১২ হাজার ১২৫টি বই স্কুল পর্যায়ে পাঠানো হলেও ৬ হাজার ১০০টি বই ঘাটতি রয়েছে।

থানছি উপজেলায় চাহিদার অনুযায়ী ১৩ হাজার ৫৬৯টি বইয়ের বিপরীতে ৯ হাজার ২২২টি বই স্কুল পর্যায়ে পাঠানো হলেও ৪ হাজার ৩৪৭টি বই ঘাটতি রয়েছে। রোয়াংছড়ি উপজেলায় চাহিদার অনুযায়ী ৮ হাজার ৬৬৫টি বইয়ের বিপরীতে ৫ হাজার ৮৩টি বই স্কুল পর্যায়ে পাঠানো হলেও ৩ হাজার ৫৮২টি বই ঘাটতি রয়েছে। সাত উপজেলায় ৭৯ হাজার ১৪৪ টি বিনা মূল্যে পাঠ্য বই ঘাততি রয়েছে।

জেলা শিক্ষা অফিস কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন জানান, হরতাল আর অবরোধের কারণে জেলার চাহিদা অনুযায়ী সব ধরণের বই স্কুল পর্যায়ে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি। হরতাল-অবরোধ শিথীল হলে সরবরাহকৃত সকল বই শিক্ষার্থীদের হাতে পৌছে দেওয়া হবে। তিনি বলেন, কি কারণে মাদ্রাসার একটি বইও পৌঁছেনি তার বোধগম্য নয়। সব বই না পৌঁছলেও বছরের শুরুতে বই উৎসব করা হবে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অবরোধ, পাঠ্যপুস্তক
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × four =

আরও পড়ুন