সিনহা হত্যা: আরও দুই এপিবিএন সদস্যের স্বীকারোক্তি

fec-image

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় রিমান্ডে থাকা আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) আরও দুই সদস্য আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এ নিয়ে আলোচিত এই মামলায় সংস্থাটির তিন সদস্যই ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিলেন।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) পক্ষ থেকে আসামি সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শাহজাহান ও কনস্টেবল রাজীবকে কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ’র আদালতে হাজির করা হয়। দুপুর দেড়টা থেকে বিচারক নিজ খাস কামরায় দুই আসামির জবানবন্দি গ্রহণ শুরু করেন।

বিকেলে আদালতের পুলিশ পরিদর্শক প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, ‘৫টা ৪০ মিনিটের দিকে দুই আসামি জবানবন্দি শেষ করে বের হন। চার ঘণ্টার বেশি সময় ধরে তারা জবানবন্দি দেন।’পরে আসামিদের আদালত পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে র‌্যাব। আদালত পুলিশ বিকেলেই তাদের কারাগারে পাঠিয়ে দেয় বলে জানান পরিদর্শক প্রদীপ।

এর আগে বুধবার রাতে এই হত্যা মামলায় প্রথম আসামি হিসেবে জবানবন্দি দেন এপিবিএন সদস্য কনস্টেবল মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ তার খাস কামরায় প্রায় আড়াই ঘণ্টা ধরে আসামির জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

এদিকে আদালতের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, আসামিরা জবানবন্দিতে প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন। কখন, কীভাবে ঘটনা ঘটেছে তারও বর্ণনা দিয়েছেন। তবে এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাবের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে কিছু জানানো হয়নি।

তিন এপিবিএন সদস্য ৩১ জুলাই রাতে সিনহা নিহতের সময় শামলাপুর চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। গত ১৮ আগস্ট তাদের গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়। পরে তাদের ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত সাত দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। গত ২২ আগস্ট এপিবিএনের তিন সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে নেয় তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব। এই তিন সদস্যকে এরই মধ্যে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: এপিবিএন, সিনহা হত্যা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − 5 =

আরও পড়ুন