আলীকদমে সামাজিক বনায়নের উপকারভোগীদের মাঝে চেক বিতরণ

fec-image

লামা বন বিভাগের আওতাধীন মাতামুহুরী রেঞ্জে ২০০২-০৩ সালে সৃজিত সামাজিক বনায়নের মেয়াদপূর্তি শেষে ৪৮ জন উপকারভোগীর মাঝে চেক বিতরণ করা হয়েছে। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বন দিবস উপলক্ষ্যে অলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

রবিবার (২১ মার্চ) এ উপলক্ষ্যে মাতামুহুরী রেঞ্জের অফিস চত্বরে লামা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এসএম কায়চারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন আলীকদম জোনের স্টাফ অফিসার উপ-অধিনায়ক মেজর আলিফ।

এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আলীকদম উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কফিল উদ্দিন বিএসসি, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য দুংড়ি মং মার্মা, আলীকদম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, প্রেসক্লাব সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমদ প্রমুখ।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন মাতামুহুরী রেঞ্জ কর্মকর্তা জহির উদ্দন মো. মিনার চৌধুরী ও লামা বন বিভাগীয় কার্যালয়ের অফিস প্রধান কাজী গোলাম সরওয়ার।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০০২-২০০৩ আর্থিক সনে মাতামুহুরী রেঞ্জের আওতায় সামাজিক বনায়নের বৃক্ষ রোপন করা হয়। এরমধ্যে ব্লকউড বাগানের ‘ই-ব্লক’-এ ৪৮ জন উপকারী আছে। এই ব্লকটি ইতোপূর্বে ৫৭ লক্ষ ৭ হাজার টাকায় নিলামে বিক্রি হয়। বিক্রলব্ধ অর্থ থেকে ৪৫ পার্সেন্ট অর্থ হিসেবে ২৫ লক্ষ ৬৮ হাজার ১৫০ টাকা পান ৪৮ জন উপকারভোগী। জনপ্রতি ৫১ হাজার ৩৬৩ টাকা পেয়েছেন উপকারভোগীরা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, বন বিভাগ ও আমাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বন রক্ষা করতে হবে। অন্যথায় পাহাড়ের প্রাণী বৈচিত্র্য বিপন্ন হবে। এর বিরূপ প্রভাব পড়বে পাহাড়ে বসবাসকারী মানুষের ওপর। তিনি সাম্প্রতিক সময়ে আলীকদমে ভাল্লুকের আক্রমণে একজন ম্রো উপজাতীয় আক্রান্ত হওয়ার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন, বন ধ্বংস হলে বনের ওপর নির্ভরশীল প্রাণীরাও বিলুপ্ত হবে। বন্যপ্রাণীরা আবাসস্থল হারাবে। যার ফল মানুষের জন্য সুখকর হবে না।

উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম বলেন, একসময় মাতামুহুরী রিজার্ভে বিশাল বনভূমি ছিল। কিন্তু জুম চাষসহ বৃক্ষ নিধনের কারণে তা উজাড় হয়ে গেছে। পরিবেশ-প্রকৃতি রক্ষায় সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করার ওপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আলীকদম, চেক বিতরণ, সামাজিক বনায়ন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 + fourteen =

আরও পড়ুন